মঙ্গলবার, ২১ মার্চ ২০২৩, ০৪:৫২ অপরাহ্ন
প্রধান সংবাদ :

নাইক্ষ্যংছড়িতে ১০ পদাতিক ডিভিশনে উদ্যাগে ফ্রী মেডিক্যাল ক্যাম্পেইন

পাহাড় কণ্ঠ প্রতিবেদক
  • প্রকাশিতঃ সোমবার, ২ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ৮৩ জন নিউজটি পড়েছেন

প্রতিনিধি নাইক্ষ্যংছড়ি>>

নাইক্ষ্যংছড়িতে ১৪ শত রোগীর পাশে দাড়ালেন রামু সেনাবাহিনীর ১০ পদাতিক ডিভিশন। তারা ১২ বিশেষজ্ঞ ডাক্তার নিয়ে মেডিক্যাল ক্যাম্পেইন করে এ সেবা প্রদান করেন এ সব অসহায় ও গরীব পাহাড়ি- বাঙ্গালীকে।

সরেজমিন গিয়ে আরো জানা যায়, সোমবার ( ২ ডিসেম্বর) সকাল ৯ টায় নাইক্ষ্যংছড়ি সদরের ছালেহ আহমদ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ ক্যাম্পইন
শুরু করেন তারা। যা শেষ হয় বেলা ৪ টায়। রামু সেনাবাহিনীর ১০ পদাতিক ডিভিশনের আওতাধিন ২ পদাতিক বিগ্রেড এ ক্যাম্পেইন পরিচালনা করেন। “সদা প্রস্তুত চব্বিশ” এ ক্যাম্পেইনের আয়োজক।

এতে অর্থোপেডিক্স বিশেষজ্ঞ,গাইনী বিশেষজ্ঞ, মেডিসিন বিশেষজ্ঞ,এ্যানেস থেসিওলজিস্ট বিশেষজ্ঞ, যৌন ও চর্ম রোগ বিশেষজ্ঞ,নাক-কান-গলা বিশেষজ্ঞ ও চক্ষু বিশেষজ্ঞের ১২ জন ডাক্তারের টিম রোগীদের চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন।

এতে আরো জানা যায়, ক্যাম্পেইন শুরুর অল্পক্ষণ পরে পরিদর্শনে আসেন ১০ পদাতিক ডিভিশনের জেনারেল কমান্ডিং অফিসার মেজর জেনারেল মোঃ ফখরুল আহসান। এ সময় নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক মোহাম্মদ শফিউল্লাহ ও নাইক্ষ্যংছড়ি প্রেস ক্লাব নেতৃবৃন্দও উপস্থিত ছিলেন।

সূত্র মতে-ক্যাম্পেইন উপলক্ষে এলাকার ১৫ টি গ্রামের ১৪ শত নানা রোগের জটিল রোগী এ ক্যাম্পে ছুঁটে আসেন । এদের মধ্যে পাহাড়ি রোগির আধিক্ষ্য থাকলেও বাঙ্গালী রোগিও ছিলো চোখে পড়ার মতো।

যেহেতু উপজেলা সদরে অবস্থিত মার্মা পাড়াটি ছিলো পাশে। অন্যান্য নৃ-গোষ্ঠীর লোকজনও এসেছে দলে দলে। পাশাপাশি বাঙ্গালীরাও ছুটে আসে সেনাবাহিনী বিশেষজ্ঞ এ ডাক্তারদের কাছ থেকে সেবা নেয়ার জন্যে। যারা খুশি মনে ঔষধসহ বিনা মূল্যে চিকিৎসা সেবা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

মধ্যম চাকপাড়া থেকে আসা উচালা চাক বলেন, সে একজন চর্ম রোগী। দীর্ঘদিন এ রোগে কষ্ট পাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু টাকার অভাবে চিকিৎসা নিতে না পেরে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছিলেন তিনি।

সীমান্তের সোনাইছড়ির বাসিন্দা কুলসুমা বেগম এ প্রতিবেদককে বলেন, তিনি গাইনী রোগী। টাকার অভাবে চিকিৎসা নিতে না পেরে তার মরণ দশা ছিলো। সেনাবাহিনীর ডাক্তারের টাকা ছাড়া চিকিৎসা ও ঔষধ তার কাছে আশির্বাদ স্বরুপ। সে খুব খুশি এ৷ সেবায়।

ক্যাম্পেইন পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের কে ১০ পদাতিক ডিভিশনের জেনারেল কমান্ডিং অফিসার মেজর জেনারেল মোঃ ফখরুল আহসান বলেন,এটি মূলত সেনাবাহিনীর রুটিনের কাজ। যেখানে মানবতার প্রয়োজন সেখানে সেনাবাহিনী। প্রতি বছর সেনাবাহিনী এ ধরনেরর কাজ করে আসছে।

গত বছর করেছিল রামুর কচ্ছপিয়াতে এ বছর নাইক্ষ্যংছড়িতে। এভাবে উড়বে মানব সেবার পায়রা।  সেনা বাহিনী বাহিনী মানে শান্তির নীড়।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আর নিউজ

আজকের নামাজের সময়সুচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৪:৫১ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:১০ অপরাহ্ণ
  • ১৬:২৭ অপরাহ্ণ
  • ১৮:১৩ অপরাহ্ণ
  • ১৯:২৬ অপরাহ্ণ
  • ৬:০৩ পূর্বাহ্ণ
© All rights reserved ©paharkantho.com-২০১৭-২০২১
themesba-lates1749691102
error: Content is protected !!